ময়মনসিংহে তিনজনের ফাঁসির আদেশ

স্টাফ রিপোর্টার : ময়মনসিংহের ভালুকার সীডস্টোর বাজারে চালককে হত্যা করে সিএনজি ছিনিয়ে নেয়ার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় তিনজনকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছে আদালত।
রোববার দুপুরে ময়মনসিংহের ১ম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিজ্ঞ বিচারক ইকবাল হোসেন এ রায় ঘোষনা করেন। ফাঁসির দন্ডাদেশপ্রাপ্ত আসামীদের মধ্যে ত্রিশাল উপজেলার উজানপাড়া গ্রামের আব্দুল হালিমের পুত্র জিয়াউল হাসান (২৫) ও ভালুকা উপজেলার ছোটকাশর গ্রামের আফাজ উদ্দিনের পুত্র ইসমাইল হোসেন (২৪) কারাগারে এবং অপর আসামী গাজীপুর জেলার শ্রীপুর থানার গলদা গ্রামের সিরাজ উদ্দিনের পুত্র সুরুজ মিয়া (২৫) পলাতক রয়েছেন। রাষ্ট্র পক্ষের আইনজীবি এবিএম নুরুজ্জামান খোকন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১১ সালের ১২ মার্চ বিকেলে যাত্রীবেশে ভালুকা উপজেলার কাঁচিনা বাজারের আবুল হোসেনের পুত্র শফিকুল ইসলামের সিএনজিটি ভাড়া নেয় ৩ জন। এরপর সন্ধ্যার দিকে তাকে দঁড়ি দিয়ে বেঁধে কুপিয়ে ও শ্বাসরোধ করে মৃত্যু নিশ্চিত করে    ওই উপজেলার জামিদিয়া মাষ্টারবাড়ি এলাকার বিলাইজুড়া খালে ফেলে সিএনজি নিয়ে পালিয়ে যায়। পরদিন স্থানীয়রা শফিকুল ইসলামের মরদেহ খালের পানিতে ভাসতে দেখে পরিবারের লোকজন ও পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে। এঘটনায় ১৩ মার্চ শফিকুলের পিতা বাদী হয়ে অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামী করে ভালুকা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।
এরপর পুলিশ অন্য একটি মামলায় ইসমাইল হোসেনকে আটক করলে সে সিএনজি চালক শফিকুল হত্যার রহস্য বেরিয়ে আসে এবং আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয় ইসমাইল। এরপর পুলিশ ত্রিশাল উপজেলার উজানপাড়া গ্রামের আব্দুল হালিমের পুত্র জিয়াউল হাসানকে (২৫) আটক করে আদালতে সোপর্দ করলে হত্যার ঘটনা স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয় সে।
এরপর পুলিশ ওই তিনজনকে আসামী করে চার্জশীট প্রদান করে।  আদালত দীর্ঘদিন সাক্ষ্য প্রমান শেষে রবিবার এ রায় ঘোষনা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.