ভৈরবে বিএনপির আড়াইশ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে ‘গায়েবি’ মামলা

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা শরীফুল আলমকে প্রধান আসামি করে আড়াইশ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুরে ভৈরব থানার পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) মোখলেছুর রহমান রাসেল বাদী হয়ে এ মামলাটি করেন।

মামলার এজাহারে শরীফুল আলমসহ স্থানীয় বিএনপির ১৮ জন নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আসামি করা হয় ২০০-২৫০ জনকে।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, সোমবার বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলার রায়কে কেন্দ্র করে ভৈরব উপজেলা বিএনপি নেতাকর্মীরা রোববার সন্ধ্যায় দলীয় অফিসে বৈঠক করে। ওই বৈঠকে বেগম জিয়ার মুক্তি দাবিসহ ভৈরবে অরাজকতা ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য তারা প্রস্ততি নিচ্ছিল। এখবর পেয়ে পুলিশ ওই অফিসে গেলে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তারা পালিয়ে যায় বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়।

ভৈরবের বিএনপির নেতারা জানান, রোববার বিএনপি অফিসে এধরনের কোনো বৈঠক বা সভা হয়নি। এছাড়া ওই দিন শরীফুল আলম ভৈরবেও আসেননি। তিনি ঢাকায় থাকেন বলে বিএনপি নেতৃবৃন্দ জানান।

ভৈরব উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো: রফিকুল ইসলাম   জানান, ‘রোববার সন্ধ্যায় স্থানীয় বিএনপির অফিসে আমরা কোনো বৈঠক বা সভা করিনি। এধরনের কোনো কর্মসূচিও ছিল না। পুলিশ হয়রানি করতেই গায়েবি ঘটনা সৃষ্টি করে আমাদের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা, অবাস্তব, অসত্য ও কাল্পনিক মামলা করেছে।’

ভৈরব থানার ওসি মোখলেছুর রহমানের সাথে এ ব্যাপারে ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি মামলার বিষয়ে কিছু বলতে রাজি হননি।

ঘটনার সত্যতা জানতে মামলার বাদী পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) মোখলেছুর রহমানকে মোবাইল ফোনে বার বার ফোন দিলেও তার সাথে কোনো রকম যোগাযোগ করা যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.