বৈষম্য বাড়ছে সমাজে : জিএম কাদের

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদের বিরোধী দলীয় উপনেতা জিএম কাদের বলেছেন, দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি যেভাবে বাড়ছে, সেই হারে গরিব মানুষের সংখ্যা কমছে না। বরং গরিব মানুষের সংখ্যা দিনকে দিনে বাড়ছে। যে কারণে সমাজে বৈষম্যও বাড়ছে। এটি সামাজিক ন্যায়বিচার ভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার অন্যতম অন্তরায়। দরিদ্র ও শ্রমিক শ্রেণির ঐক্যই জাতীয় পার্টির মূল শক্তি।

বৃহস্পতিবার জাপা চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে জাতীয় হকার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির পরিচিতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জিএম কাদের বলেন, সমাজে গরিব ও ধনী মানুষের সংখ্যা বাড়ছে। এটা কোনো সুষ্ঠু সমাজের লক্ষণ নয়। আমরা চাই সমাজে মধ্যবিত্তের সংখ্যা বাড়তে থাকুক। আজকে যারা গরিব, তারা যেন মধ্যবিত্তের কাতারে উঠে আসে। তাদের সন্তানরা যেন ডাক্তার-ইঞ্জিনিয়ার হতে পারে। জাতীয় পার্টি সামাজিক ন্যায়বিচার ভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার রাজনীতি করে।

জাতীয় হকার্স পার্টির সভাপতি আনোয়ার হোসেন আনুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন খানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত পরিচিতি সভায় জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, এস.এম. ফয়সল চিশতী, মীর আব্দুস সবুর আসুদ, আলমগীর সিকদার লোটন, ভাইস চেয়ারম্যান মোস্তাকুর রহমান মোস্তাক, যুগ্ম মহাসচিব সুলতান আহমেদ সেলিম, হকার্স পার্টির নেতৃবৃন্দের মধ্যে রাজু আহমেদ রিপন, রাবেয়া আক্তার বকুল, মুকুল আমিন, হুমায়ুন কবির, কামাল শেঠ, সাজেদুল হক লিটন বক্তৃতা করেন।

এ সময় প্রেসিডিয়াম সদস্য এটিইউ তাজ রহমান, এ্যাড. রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, যুগ্ম মহাসচিব নুরুল ইসলাম ওমর, হাসিবুল ইসলাম জয়, মনিরুল ইসলাম মিলন, সাংগঠনিক সম্পাদক ফখরুল আহসান শাহজাদা, হেলাল উদ্দিন, যুগ্ম দফতর সম্পাদক এম.এ. রাজ্জাক খান, যুগ্ম সম্পাদক আহাদ চৌধুরী শাহীন, সুমন আশরাফ, নিজাম উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

মসিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, জাতীয় পার্টি হতদরিদ্র ও খেটে খাওয়া মানুষের রাজনীতি করে। জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ সারাজীবন হতদরিদ্র মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করেছেন। রাজধানীর প্রতিটি ঘরেই গৃহ পরিচারক আছে। আমরা তাদেরও সংগঠিত করতে চাই।

error: প্রিয়জন; আপনি লেখা কপি করতে চাচ্ছেন!! অনুগ্রহ করে তা থেকে বিরত থাকুন। আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

Facebook