দাবানলে বিধ্বস্ত অস্ট্রেলিয়ায় বৃষ্টি, ১৮ মাসের বাচ্চার নাচ ভাইরাল

সম্পাদক কর্তৃক প্রকাশিত১২:২১ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৮, ২০২০

দাবানল বিধ্বস্ত অস্ট্রেলিয়ায় অবশেষে দেখা মিলল স্বস্তির বৃষ্টি। আর তা দেখে বেজায় খুশি বাসিন্দারা। তবে সবচেয়ে বেশি খুশি হয়েছে দেড় বছরের এক খুদে। বৃষ্টি দেখে এক দৌড়ে বাড়ি থেকে বাইরে বেরিয়ে আসে একরত্তি। বৃষ্টিতে গা ভিজিয়ে নাচতে শুরু করেছে সে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় খুদের কীর্তির ভিডিও শেয়ার করেন তার মা। বর্তমানে নেটিজেনদের টাইমলাইনের সিংহভাগ দখল করে নিয়েছে বৃষ্টিভেজা শিশুর আনন্দের মুহূর্ত। যদিও আবহাওয়াবিদদের আশঙ্কা দাবানলের পর এই বৃষ্টি হতে পারে ভূমিধস এবং জলদূষণের অন্যতম কারণ।

গত বছরের সেপ্টেম্বর থেকেই জ্বলছে অস্ট্রেলিয়া। দাবানলে পুড়ে ছাই বিস্তীর্ণ বনাঞ্চল। অসহায়ের মতো প্রাণ হারিয়েছে বহু বন্যপ্রাণী। নষ্ট হয়ে গিয়েছে একরের পর একরের জমি। দমকল কর্মীদের অক্লান্ত পরিশ্রমেও আগুন নিয়ন্ত্রণে সময় লেগে গিয়েছে অনেক। দাবানল বিধ্বস্ত অস্ট্রেলিয়া যেন এখন মৃত্যুপুরী। থমথমে বিস্তীর্ণ এলাকা।

তারই মাঝে বৃহস্পতিবার আচমকাই ঝেঁপে বৃষ্টি আসে অস্ট্রেলিয়ায়। নিউ সাউথ ওয়েলসে নিজেদের ফার্ম হাউসের ভিতর বসে বাইরের দিকে তাকিয়ে ছিল আঠারো মাসের খুদে সুনি ম্যাকেঞ্জি। ঝেঁপে বৃষ্টি আসতে দেখে নিজেকে আর সামলে রাখতে পারেনি সে। ফার্ম হাউস থেকে সোজা দৌড়ে বাইরে বেরিয়ে আসে সে। বৃষ্টিতে ভেজার আনন্দে নাচতে শুরু করে সুনি।

ওই খুদের মা টিফানি ম্যাকেঞ্জি তার সন্তানের নাচের ভিডিও স্মার্টফোনবন্দি করেন। ভিডিওটি শেয়ার করে একজন লিখেছেন, “দাবানলে বিধ্বস্ত অস্ট্রেলিয়ায় একটু স্বস্তি দিচ্ছে এই ভারী বৃষ্টি। আর জীবনে প্রথমবার বৃষ্টি থেকে আনন্দে নেচে উঠেছে ১৮ মাসের ছোট্ট সুনি। সত্যি এতদিন পর বৃষ্টি আসার অনুভূতি অস্ট্রেলিয়াবাসীর কাছে স্বর্গীয়।”

দাবানলের গ্রাসে কেউ হারিয়েছেন বাসস্থান আবার কেউ বা চোখের সামনে প্রাণ হারাতে দেখেছেন কাউকে। তাই এখনো দাবানল বিধ্বস্তদের চোখেমুখে আতঙ্কের ছাপ স্পষ্ট। কিন্তু তার মাঝে ভারী বৃষ্টি এবং খুদের নাচ কিছুটা হলেও স্বস্তি দিচ্ছে স্থানীয়দের। সংবাদ প্রতিদিন।

সংবাদটি শেয়ার করতে নিচে ক্লিক করুন

লাইভ

Add-1200x70
rss goolge-plus twitter facebook
Developed by

যোগাযোগ

সেলফোন : ০১৩০৪-১৯৭৭৪৪

ই-মেইল: mymensinghlive@gmail.com,
ময়মনসিংহ লাইভ পোর্টালটি mymensingh.News নিউজ এর অঙ্গ প্রতিষ্ঠান।

সম্পাদক ও প্রকাশক

মো. আব্দুল কাইয়ুম

টপ
শেয়ার করুন
শেয়ার করুন
error: প্রিয়জন; আপনি লেখা কপি করতে চাচ্ছেন!! অনুগ্রহ করে তা থেকে বিরত থাকুন। আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।