তাঁরা দুর্নীতিবাজদের সঙ্গে জোট বেঁধেছেন : প্রধানমন্ত্রী

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও তাঁর ছেলে তারেক রহমান দুর্নীতিতে দোষী সাব্যস্ত উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, যুক্তফ্রন্টের ড. কামাল হোসেন ও বদরুদ্দোজা চৌধুরী দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য দুর্নীতিবাজদের সঙ্গে জোট বেঁধেছেন।

গতকাল রোববার সন্ধ্যায় (স্থানীয় সময়) যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের আয়োজনে নিউইয়র্কে এক নাগরিক সংবর্ধনায় এসব কথা বলেন শেখ হাসিনা।

ইউএনবির খবরে জানানো হয়, গত শনিবার ঢাকার মহানগর নাট্যমঞ্চে ‘জাতীয় ঐক্য’ গঠনের প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে এক সভা হয়। সেখানে গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন, বিকল্পধারার বদরুদ্দোজা চৌধুরী এবং দলের শীর্ষ কয়েক নেতাকে নিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর উপস্থিত ছিলেন। এই সভার মাধ্যমে ‘ঐক্য প্রক্রিয়া আরেক ধাপ এগোল’ বলে জানান এই নেতারা। সেই সভার পর এই ‘জাতীয় ঐক্য’ নিয়ে প্রথম মুখ খুললেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এই সমস্ত দুর্নীতিবাজকে নিয়ে দুর্নীতির বিরুদ্ধে যাঁরা কথা বলেন, তাঁরা লড়াই করবেন! কামাল হোসেন লড়াই করবেন? বি চৌধুরী লড়াই করবেন? মান্না লড়াই করবে?’

শেখ হাসিনা বলেন, এতিমদের টাকা আত্মসাতের কারণে খালেদা জিয়া দোষী সাব্যস্ত হয়ে কারাগারে রয়েছেন। আর তাঁর বড় ছেলে তারেক জিয়াও ১০ ট্রাক অস্ত্র মামলা ও দুর্নীতির মামলায় দোষী সাব্যস্ত।

শনিবারের সভায় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা মইনুল হোসেন উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন।

মইনুল হোসেন প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, কাকরাইলের বাড়ির জমি দখল করে সে জায়গা নিয়ে মামলা আছে। সেই মঈনুল হোসেনও তাঁদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন।

পাশাপাশি বিএনপি নেতা মওদুদ আহমদে প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সাবেক রাষ্ট্রপতি এইচ এম এরশাদের সহানুভূতিতে অবৈধভাবে বাড়ি দখলের পর দোষী সাব্যস্ত হয়ে গুলশানের বাড়ি হারিয়েছেন।

ড. মুহাম্মাদ ইউনূসের সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নোবেল প্রাইজ পাওয়ার পরও তিনি গ্রামীণ ব্যাংকের এমডি পদ ছাড়েন না। দরিদ্রদের উচ্চসুদে ঋণ দিয়ে তিনি এখন বড়লোক হয়েছেন।

হিলারি ক্লিনটনের সহযোগিতায় ড. ইউনূস পদ্মা সেতুতে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন বন্ধ করেছে দাবি করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় আমাকে গ্রেপ্তারের পর তিনি (ইউনূস) ইয়াজউদ্দীন নেতৃত্বাধীন সরকারকে ডাবল এ প্লাস মার্ক দিয়েছিলেন।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘এরা সব এক জায়গায়। কেউ সুদখোর, কেউ ঘুষখোর, কেউ মানি লন্ডারিংয়ের দায়ে অভিযুক্ত, কেউ খুনি। এভাবে সব আজকে এক জায়গায়।’

যুক্তফ্রন্ট প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘তারা কেন সরকারকে উৎখাত করবে? কারণটা কী? দেশের জন্য আমরা কী করি নাই? এমন কোনো খাত নেই, যেখানে উন্নয়ন করি নাই। আরে, এটা আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলেই সম্ভব।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.