ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করবে না কাতার

ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করা ইসরায়েলি-ফিলিস্তিনি দ্বন্দ্বের জবাব হতে পারে না বলে জানালেন এক কাতারি পররাষ্ট্র কর্মকর্তা। তিনি যোগ করেছেন, ইহুদি রাষ্ট্রটির সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠায় অন্য উপসাগরীয় আরব দেশগুলোর সঙ্গে যোগ দেবে না দোহা।

কাতারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ললওয়াহ আল খাতের সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) ব্লুমবার্গকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে স্পষ্ট বলে দিয়েছেন, ইসরায়েলের সঙ্গে তার দেশ সম্পর্ক স্বাভাবিক করবে না। তিনি বলেছেন, ‘আমরা মনে করি না যে সম্পর্ক স্বাভাবিক করা হচ্ছে এই দ্বন্দ্বের কেন্দ্রবিন্দু এবং এটা কোনও জবাব হতে পারে না।’

আল খাতের বলেছেন, ‘এই দ্বন্দ্বের মূল হচ্ছে ফিলিস্তিনিদের শোচনীয় অবস্থা যেখানে তাদের জীবনমান সবক্ষেত্রে নিচের দিকে। তাদের কোনও দেশ নেই, তারা বাস করছে দখলদারিত্বের অধীনে।’

এই পররাষ্ট্র কর্মকর্তার বক্তব্য এমন সময়ে এলো, যখন হোয়াইট হাউজে ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার চুক্তির প্রস্তুতি নিচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন। মঙ্গলবার এই চুক্তি হওয়ার কথা। ওই চুক্তি অনুযায়ী আরবীয় দেশ দুটির সঙ্গে কূটনৈতিক, বাণিজ্যিক, নিরাপত্তা ও অন্য সম্পর্ক স্বাভাবিক হবে ইসরায়েলের। একে ফিলিস্তিনিরা তাদের পিঠে ছুরিকাঘাত বলে তীব্র নিন্দা জানিয়েছে।

এ মাসের শুরুতে কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানি হোয়াইট হাউজের উপদেষ্টা জেয়ার্ড কুশনারকে বলেছেন, ইসরায়েলের সঙ্গে দ্বন্দ্বের সমাধান একটাই। তা হলো পূর্ব জেরুজালেমকে ফিলিস্তিনিদের রাজধানী ঘোষণা করা।